ইসলামপুরে প্রতিপক্ষের অত্যাচার নির্যাতনসহ মিথ্যা মামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন

48
ইসলামপুরে প্রতিপক্ষের অত্যাচার নির্যাতনসহ মিথ্যা মামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন

রোকনুজ্জামান সবুজ, জামালপুর 

জামালপুরের ইসলামপুর উপজেলার প্রতিপক্ষের অত্যাচার, নির্যাতনসহ মিথ্যা মামলার প্রতিবাদে ভুক্তভোগী এলাকাবাসীর সম্মিলিত মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছেন। মঙ্গলবার (২৬ জানুয়ারি) দুপুরে উপজেলার সাপধরী ইউনিয়নের কাঁসারী ডোবা গ্রামে ওই মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয়। এতে বক্তব্য রাখেন, জয়নাল আবেদীন মণ্ডল,আজিজুর রহমান চৌধুরী,বাবলু মণ্ডল,হাফিজুর রহমান প্রমুখ ।
মানববন্ধনে ভূক্তভোগিদের অভিযোগ,গত বছরের ২৩ এপ্রিল জয়নাল আবেদীন মণ্ডলের ছাগল পাশ্ববর্তী ফকির আলী মণ্ডলের ফসলী ক্ষেত খেয়ে ক্ষতি করে। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে জয়নাল আবেদীন মণ্ডলের ৩টি ছাগলের কান কেটে দেয় ফকির আলী মণ্ডল গংরা। এ ঘটনার রেশ কাটতে না কাটতেই একই দিন বিকালে জয়নাল আবেদীন মণ্ডল গংদের বসতবাড়িতে হামলা চালায় ফকির আলী মণ্ডল গংরা। এতে জয়নাল আবেদীন মণ্ডল গংদের বেশ কয়েকজন গুরুতর আহত হয়ে জেলা সদরসহ বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি হয়ে চিকিৎসা নেয়। এ ঘটনায় ২৬ এপ্রিল ফকির আলী মণ্ডলকে প্রধান আসামি দিয়ে ১৫ জনের নামোল্লেখে ইসলামপুর থানায় একটি মামলা দায়ের করে জয়নাল আবেদীন মণ্ডলের ছেলে বাবলু মণ্ডল। মামলা নং- ১৫। ওই মামলায় আদালত থেকে জামিনে এসে জয়নাল আবেদীন মণ্ডল গংদের শায়েস্তা করতে নানাবিধ ফন্দি আঁটে ফকির আলী মণ্ডল গংরা। জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে মাসখানেক আগে ফকির আলী মণ্ডলকে প্রধান আসামি দিয়ে জামালপুরের নির্বাহী আদালতে ৫২৪ নং একটি মামলা দায়ের করে জয়নাল আবেদীন মণ্ডল। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে সম্প্রতি নিজেদের ঘরবাড়ি নিজেরাই ভাংচুর করে উদ্দেশ্যে প্রণোদিত ভাবে জয়নাল আবেদীন মণ্ডল গংদের বিরুদ্ধে দ্রুত বিচার আইনে আদালতে মামলা দিয়েছে ফকির আলী মণ্ডল। আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে আসামিদের প্রতি সমন জারি করেছেন। প্রতিপক্ষের উদ্দেশ্য প্রণোদিত লাগাতার অত্যাচার,নির্যাতনসহ মিথ্যা মামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন করেছেন ভুক্তভোগীরা।
স্থানীয় ইউপি মেম্বার মুহাম্মদ ওয়াদুদ জানান,’দ্রুত বিচার আইনে মামলার করার ঘটনা এলাকায় ঘটেনি। আদালতে কীভাবে ওই মামলাটি দায়ের করা হয়েছে, তা আমি জানি না।’
স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান জয়নাল আবেদীন জানান, ‘আমি সব সময় এলাকাবাসীর শান্তি কামনা করি। কাউকে অত্যাচার, নির্যাতনসহ মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করা মোটেও ইমানদারের কাজ নয়।’

print