কৌতুহল বাড়াচ্ছে আদার পুকুরের মূর্তি-পাথর

62
কৌতুহল বাড়াচ্ছে আদার পুকুরের মূর্তি-পাথর

নিজস্ব প্রতিবেদক, আদমদীঘি 

বগুড়ার আদমদীঘি উপজেলার ইন্দোইল চকসাবাজ নামক গ্রামের শতবছরের পুরাতন আদার পুকুরে মিলছে পুরাতন মূর্তি ও পাথরের টুকরা। সর্বশেষ সোমবার বেলা ১২টায় আদার পুকুরে গোসল করতে নেমে ওই গ্রামের দুলাল শাখিদারের ছেলে সিয়াম মাহফুজ (১৩) একটি মূর্তি পাথর পায়।

প্রত্যক্ষদর্শিরা জানান, উপজেলার ছাতিয়ানগ্রাম ইউনিয়নের ইন্দইল চকসাবাজ মসজিদের শতবছরের পুরাতন পুকুরে গোসল করতে নামে সিয়াম।

এসময় তার পায়ে ওই পাথর ঠেকলে তা তুলে এনে গ্রামবাসীকে দেখায়। গ্রামের লোকজন পুলিশে খবর দিলে ঘটনাস্থল থেকে তারা সেটি উদ্ধার করে নিয়ে যায়।

শুধু তাই নয় এর আগে গত ২০১৪ সালের ১৩ ই মার্চ চকসাবাজ গ্রামের বাশিয়াগাড়ি আদার পুকুরেই রবিউল ইসলাম নামের এক ব্যক্তি পুকুরের পাড়ে মাটি কাটার সময় ৬ কেজি ওজনের কষ্টি পাথরের চতুভুর্জি বিষ্ণু মূর্তি পেয়েছিলেন। সেটির মূল্য ছিল প্রায় ৬ কোটি টাকা।

গ্রামবাসি মূল্যবান ওই মূর্তিটিও থানা পুলিশের নিকট জমা দিয়ে দেন। মাত্র সাত বছরের ব্যবধানে একই পুকুর থেকে পরপর দুটি ঘটনায় আদার পুকুরকে এখন গ্রামবাসি মূর্তি-পাথরের পুকুর বলছেন।

চকসাবাজ গ্রামের যুবক মেহেদী হাসান বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, পরপর মূল্যবান কষ্টি পাথরের দুটি মূর্তি ও পাথর উদ্ধারের ঘটনা গ্রামবাসির মাঝে কৌতুহল সৃষ্টি করছে। এখন অনেকেই মনে করছে এই পুকুরে আরো মূল্যবান কিছু থাকতে পারে। তবে মূল্যবান কিছু পাওয়া গেলে আমরা সঙ্গে সঙ্গে স্থানিয় জনপ্রতিনিধি বা পুলিশ-প্রশাসনকে অবহিত করে থাকি।

সোমবার ২৯ মার্চ দুপুরে যে পথরটি উদ্ধার করে তার দৈর্ঘ ৭ইঞ্চি, প্রস্থ ৪ইঞ্চি ও প্রায় ৩৫০ গ্রাম ওজনের পথরটি উদ্ধার করে থানার উপ-পরিদর্শক একলাছ।

print