জামালপুরে সন্ত্রাসী হামলার শিকার বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র সিয়াম

106
জামালপুরে সন্ত্রাসী হামলার শিকার বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র সিয়াম

রোকনুজ্জামান সবুজ, জামালপুর

জামালপুরের ঢেংগারগড়ে আকরাম বাহিনীর সন্ত্রাসী হামলায় বাম পা ভেঙ্গে অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে বেসরকারি বিশ^বিদ্যালয়ের ছাত্র আবু হাসান সিয়ামের ভবিষ্যত।
এই ঘটনায় গত রবিবার সিয়ামের বাবা আমিনুল ইসলাম বাদী হয়ে জামালপুর সদর থানায় আকরাম হোসেনসহ ৮জনের নামে একটি এজাহার দায়ের করেছেন।
বেসরকারি বিশ^বিদ্যালয় আইইউবিএটি এর মেকানিক্যাল বিভাগের ১১তম পর্বের ছাত্র আবু হাসান সিয়াম জামালপুর শহরের মুকুন্দবাড়ি এলাকার আমিনুল ইসলামের ছেলে।
আবুৃ হাসান সিয়াম ঢাকা পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট ছাত্রলীগের ড. কাজী মোতাহার হোসেন হল শাখার সাবেক সহ-সভাপতি।
গত ১৫ জানুয়ারি শুক্রবার বিকালে জামালপুর সদর উপজেলার শরিফপুর ইউনিয়নে ঢেংগারগড় গ্রামে এই হামলার ঘটনা ঘটে।
সিয়ামের বাবা আমিনুল ইসলাম জানান-“ঢেংগারগড়ের স্থানীয় একটি মসজিদ ব্যবস্থাপনা কমিটির সাধারন সম্পাদকের দায়িত্বে রয়েছি আমি এবং একই গ্রামের নছর আলীর পুত্র আকরাম হোসেন সভাপতির দায়িত্বে রয়েছে। শুক্রবার জুম্মার নামাজের পর মসজিদ কমিটির একটি বিষয় নিয়ে আকরামের স্বজনদের সাথে কথাকাটাকাটি হয়। সেই দিন বিকালে আমার ছেলে সিয়াম মটরসাইকেল যোগে বাড়িতে ফিরছিল। বাড়িতে ফেরার পথে ঢেংগারগড়ে আকরাম হোসেনের নির্দেশে তার সন্ত্রাসী বাহিনী সিয়ামের উপর হামলা করে সিয়ামকে আঘাত করে এবং মটরসাইকেলটি ভাংচুর করে। ঘটনাস্থলে স্থানীয় খুদেজা বেগম তাদের বাধা দিলে তার মাথায় আঘাত করে। পরে স্থানীয়রা আহতদের জামালপুর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করে। খুদেজা বেগমের অবস্থা অবনতি দেখা দিয়ে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজে স্থানান্তর করে। বর্তমানে সিয়াম জামালপুর জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। ”
জামালপুর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রেজাউল ইসলাম খান জানান- ঢেংগারগড়ের ঘটনায় থানায় একটি এজাহার দায়ের করেছে। ঘটনাস্থলে তদন্তের জন্য পুলিশ পাঠানো হয়েছে। তদন্তের পরই প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

আকরাম হোসেনের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি রাগান্বিত হয়ে উচ্চকন্ঠে বলেন- “আমি এখন চট্টগ্রাম আছি। শুক্রবার দিন এলাকায় কি ঘটেছে আমি জানি না।

print