ডেমরায় শ্রমিকদের সড়ক অবরোধ, পুলিশের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া

2120

ফের মন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজীর পদত্যাগ দাবী
সালে আহমেদ

রাজধানীর ডেমরা- যাত্রাবাড়ী এলাকায় সকাল থেকে অবরোধ করে রেখেছেন কয়েক’শ পাটকল শ্রমিক। সকাল ৮টা থেকে ঢাকার লতিফ বাওয়ানী মিল ও করিম জুট মিলের শ্রমিকরা লাঠি হাতে যাত্রাবাড়ী মোড়ে অবস্থান নেয়। এ কারণে ডেমরা-যাত্রাবাড়ী মোড় দিয়ে সব ধরনের যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে।

শ্রমিকেরা বলছেন, আট সপ্তাহ ধরে তাদের বেতন দেওয়া হচ্ছে না। বেতন না পেয়ে মানবেতর জীবনযাপন করছেন তারা। অন্যদিকে ডেমরা-যাত্রাবাড়ী মোড় অবরোধ করায় ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের গাড়িও ঢাকায় ঢুকতে পারছে না। এমনকি মহাসড়কে ভয়াবহ যানজটের সৃষ্টি হয়েছে।

লতিফ বাওয়ানী মিলের শ্রমিক আবদুর রাজ্জাক সাংবাদিকদের বলেন, আট মাস ধরে আমাদেরকে বেতন দেয়া হচ্ছে না। বেতন না পেয়ে কঠিন কষ্টে আছেন অনেকেই। করিম জুটমিলের শ্রমিক শামসুল হক বলেন, আজ প্রথম রোজার দিন। দুই মাস ধরে বেতন পাচ্ছি না। কীভাবে সংসার চালাবো?

পাটকলের শ্রমিকরা আরো বলেন, আমাদের আর বেঁচে থাকার উপায় নেই বলে রাস্তায় নেমেছি।আমাদের জীবন ওষ্ঠাগত এখন, আমাদের পিঠ দেয়ালে ঠেকে গেছে।অভাবের তাড়নায় রাস্তায় নেমেছি।

এদিকে,মঙ্গলবার সকাল থেকে হাজার হাজার শ্রমিক ডেমরা-যাত্রাবাড়ী, ডেমরা-রামপুরা ও ডেমরা-চিটাগাং রোড সড়ক অবরোধ করেন। এ সময় শ্রমিকেরা রাস্তায় টায়ার, কাঠ জ্বালিয়ে বিক্ষোভ ও লাঠি মিছিল করেন।এদিকে মঙ্গলবার দুপুরে পুলিশ ও শ্রমিকদের সাথে দফায় দফায় সংঘর্ষ বাধে।

এ ঘটনায় বিক্ষুব্ধ শ্রমিকরা ডেমরা থেকে যাত্রাবাড়ী পর্যন্ত অবস্থান নিয়ে বিভিন্ন যানবাহন ভাঙচুর করে।এ ঘটনায় ডেমরা ও আশাপাশের এলাকার কর্মজীবি ও অফিসগামী লাখো মানুষের দুর্ভোগ চরম আকার ধারণ করেছে। তবে বিক্ষুব্ধ শ্রমিকেরা এ্যাম্বুলেন্স ও পরীক্ষার্থীদের ছেড়ে দিয়েছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে সিবিএ সভাপতি বলেন, কর্তৃপক্ষের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আমরা শ্রমিকদের বকেয় পরিশোধ করব। তবে এসব বিষয়ে বিজেএমসির সঙ্গে বরাবরই কথা হচ্ছে। তারপরও শ্রমিকেরা রাস্তায় নেমেছে। শ্রমিকদের সব দাবিগুলো কর্তৃপক্ষের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী বাস্তবায়নের পথে প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

শ্রমিক গাজিউল ইসলাম বলেন, বেতন দেওয়া হচ্ছে না। আমরা শ্রমিকেরা সংসার চালাতে পারছি না। লতিফ বাওয়ানি মিলের শ্রমিক ইসহাক মিয়া বলেন, দুই মাস ধরে বেতন পাচ্ছি না।

বিক্ষোভ চলাকালে সকাল সাড়ে ১০টার দিকে আন্দোলনরত শ্রমিকদের ধাওয়া দেয় পুলিশ। শ্রমিকরা এখন ঢাকা-ডেমরা রোডে অবস্থান নিয়েছেন।

পাটকল শ্রমিকদের দাবির মধ্যে রয়েছে- নিয়মিত সাপ্তাহিক মজুরি ও বেতন প্রদান, সরকার ঘোষিত জাতীয় মজুরি ও উৎপাদনশীলতা কমিশন-২০১৫ দ্রুত বাস্তবায়ন, অবসরপ্রাপ্ত শ্রমিক-কর্মচারীদের পিএফ-গ্র্যাটুইটি ও মৃত শ্রমিকদের বীমার বকেয়া প্রদান, টার্মিনেশন ও বরখাস্ত শ্রমিকদের কাজে পুনর্বহাল, সেটআপ অনুযায়ী শ্রমিক-কর্মচারীদের নিয়োগ ও স্থায়ী করা, পাট মৌসুমে পাট কেনার জন্য প্রয়োজনীয় অর্থ বরাদ্দ ও উৎপাদন বৃদ্ধির লক্ষ্যে মিলগুলোকে পর্যায়ক্রমে বিএমআরই করা।

print