তল্লা মাদ্রাসা রোডে বৃদ্ধার জমি দখল করে খুরশীদ আলমের পরিকল্পনাবিহীন ভবন নির্মাণ

108
তল্লা মাদ্রাসা রোডে বৃদ্ধার জমি দখল করে খুরশীদ আলমের পরিকল্পনাবিহীন ভবন নির্মাণ

নিজস্ব প্রতিনিধি

নারায়ণগঞ্জের পশ্চিম তল্লা মাদ্রাসা রোডে অসহায়
বৃদ্ধা সামসুন্নাহার (৫০) এর বসতবাড়ীর কিছু অংশ দখল করে মোঃ দেলোয়ার
হোসেন এর পুত্র মাষ্টার মোঃ খুরশীদ আলম (৪০) পরিকল্পনা ও ইমারত নকশাবিহীন ৪ তলা ভবনের নির্মাণ কাজ করে যাচ্ছে বলে জানা যায়।
স্বামী পরিত্যক্ত সামসুন্নাহার দুই সন্তানের জননী। তার দু’সন্তানই পেশাগত
গার্মেন্টস্ কর্মচারী। বৃদ্ধা পৈত্রিকভাবে ০২.৪৫ শতাংশ জমির মালিক ছিলেন।
সংসারের অভাবের তাড়নায় সে অর্ধ-শতাংশ (.৫০ শতাংশ) সম্পত্তি বিক্রি করেন মোঃ খুরশীদ আলম এর নিকট। খুরশীদ আলম তার ক্রয়কৃত ০১ শতাংশ জমিসহ সামসুন্নাহারের নিকট থেকে ক্রয়কৃত অর্ধ-শতাংশ মোট ১.৫০ শতাংশ ভূমির উপর ০৪ তলা ভবন নির্মাণ কাজ শুরু করেন ভবনের আইনী নিয়মের তোয়াক্কা না করে।
তার এ অনৈতিক কাজে সহযোগিতা করছেন সমাজের কতিপয় মুখোশধারী সমাজ সেবক ও ঠিকাদাররা। সে ভবন নির্মাণ কাজে নির্মাণ আইন না মানার পাশাপাশি বৃদ্ধার সীমানার কিছু অংশ প্রায় ০৬ ইঞ্চি জোরপূর্বক প্রবেশ করে ভবনের কাজ করে যাচ্ছে বীরদর্পে। এ কাজে বৃদ্ধা বাধা দিলে সামাজিক ন্যায়বিচার না পেয়ে ফতুল্লা মডেল থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেন এবং সেই সাথে রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ জোনাল অফিস নারায়ণগঞ্জেও। বৃদ্ধার অভিযোগের প্ররিপ্রেক্ষিতে রাজউক নির্মাণ কাজে বাধা দিলেও মোঃ খুরশীদ আলম পর্যায়ক্রমে তার ভবনের কাজ করে যাচ্ছে বলে এমনটাই বলেছেন ভুক্তভুগী। ফতুল্লা মডেল থানার এস আই শামীম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে উভয়পক্ষকে বসে সঠিক সীমানা নির্ধারণ করে বিরোধের সমাধানের কথা বলেছেন।
বৃদ্ধা সামসুন্নাহার ন্যায় বিচার দাবী করেন সমাজের সচেতন মহলসহ আইন
প্রয়োগকারী সংস্থা ও রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের নিকট।

print