দশমিনার প্রতিবন্ধী ভিক্ষুক আবুল ৫ টাকায় খুশি ১০ টাকায় মহাখুশি

66
দশমিনার প্রতিবন্ধী ভিক্ষুক আবুল ৫ টাকায় খুশি ১০ টাকায় মহাখুশি

দশমিনা (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি
পটুয়াখালীর দশমিনা উপজেলার সদর ইউনিয়নের দশমিনা গ্রামের হতদরিদ্র মৃত্যু আঃ সালাম ও বেগম বিবি’র দ্বিতীয় সন্তান ভিক্ষুক আবুল হোসেন (৪০) ৫টাকায় খুশি ১০টাকায় মহাখুশি হয়। আবুলের আপন বলতে মৃত্যু ভাইয়ের স্ত্রী ও সন্তান আর কেউ নেই। পৈত্রিক জমিতে মাথা গোঁজার ঠাই আছে আবুল হোসেনের। কেউ কিছু বললে এক গাল হাসি দিয়ে অস্পষ্ট আবদার। আবুল জন্মগতভাবেই শারীরিক প্রতিবন্ধী। কথার ভাষা অস্পষ্ট অজানা। খাবারের জন্য পরিচিতদের কাছে বিনয়ের সাথে টাকা দাবি করেন। কেউ কেউ আগ্রহ করে টাকা দেয় আবার না দিলে দুঃখে ফ্যাল ফ্যাল করে কেঁদে ফেলেন। বাবার মৃত্যুর ২ বছরের মধ্যেই শিশু বয়সে মাকে হারান। অযত্নেই বেড়ে উঠেছে আবুল। নিজের ভার নিজেকেই বহন করতে হয় আবুল হোসনকে। আপনজন হারিয়ে আবুলের ঠাঁই হয় ভাইয়ের স্ত্রী মাহিনুরের সংসারে। আবুলের আপন বলতে মাহিনুর ও তার দু’সন্তান এবং তারাই একমাত্র ভরসা।
উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক সদর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান এ্যাড. ইকবাল মাহমুদ লিটন বলেন, আবুলকে দেখলে কান্না পায়। মাঝে মাঝে ব্যক্তিগত ও ইউনিয়ন পরিষদের মাধ্যমে সাহয্য সহযোগীতা করে আসছি।
উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা মু. অলিউল ইসলাম বলেন, আবুল হোসেন প্রতিবন্ধী ভাতা হিসাবে সরকারীভাবে প্রতিমাসে ৭’শ টাকা হারে পেয়ে আসছেন।

print