দশমিনায় ভেঙে পড়ে আছে সেতু স্থানীয়দের চলাচলে চরম দূর্ভোগ

44
দশমিনায় ভেঙে পড়ে আছে সেতু স্থানীয়দের চলাচলে চরম দূর্ভোগ

নাসির আহমেদ, দশমিনা (পটুয়াখালী)
পটুয়াখালীর দশমিনা উপজেলা সদরের পুর্ব লক্ষèীপুর ও পশ্চিম লক্ষèীপুর এলাকার সংযোগ সেতুটি ভেঙে পড়ে থাকায় সাধারন মানুষের যাতায়াতে চরম দূর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। গত ৭ জানুয়ারী সেতুটি পারাপারের সময় ভেঙে পড়ে স্থানীয় জিতেন বেপারীর ছেলে পরিমল বেপারী ও নিকুঞ্জ রায়ের ছেলে স্বপন রায় একটি ট্রাক্টর সহ সেতুটির পূর্ব অংশের প্রায় ৭/৮ ফুট ভেঙে নীচে পড়ে যান।
জানা যায়,১৯ বছর আগে নির্মানের পর কোন ধরনের সংস্কার না করায় সেতুর র‌্যালিং পুরপুরি নষ্ট হয়ে ভেঙে গেছে। সেতুটির মাঝখানে ভেঙ্গে বড় বড় গর্ত হয়ে রড বেড়িয়ে গেছে। বর্তমানে স্থানীয় মানুষ একটি বাঁেশর সাকো তৈরি করে যাতায়াত করছেন। স্থানীয়রা জানান, সেতুটি ভেঙ্গে যাওয়া ও দীর্ঘদিন সংস্কার না হওয়ায় স্কুল কলেজের শিক্ষার্থী বৃদ্ধ শিশু মহিলা সহ হাজার হাজার মানুষের চলাচলে চরম দূর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর (এলজিইডি) সূত্রে জানা গেছে, ২০০০-২০০১ অর্থবছরে পুর্ব লক্ষীপুর ও পশ্চিম লক্ষীপুর এলাকার সংযোগ সেতুটি নির্মান করা হয়েছিল। পূর্ব লক্ষীপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক জয়ন্ত মন্ডল জানান, সেতুটি ভেঙে পড়ে থাকায় বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী সহ মানুষের যাতায়াতে চরম দূর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। দশমিনা ইউপি চেয়ারম্যান এ্যাড. ইকবাল মাহমুদ লিটন জানান, সেতুর বিষয়টি মাসিক উন্নয়ন সমন্বয় সভায় তুলে ধরা হয়। এলজিইডির দশমিনা উপজেলা প্রকৌশলী মোঃ মকবুল হোসেন জানান, এই রকম বেশ কয়েকটি সেতু ভেঙে পড়ে রয়েছে, দ্রুত সেতুগুলো পূন:নির্মানের জন্য সংশ্লিষ্ট দপ্তরে চিঠি পাঠানো হবে।

print