নারায়নগঞ্জের এমপি সেলিম ওসমান ও নতুন অভিজ্ঞতা

264
দীপ আজাদ

দীপ আজাদ

গতকাল শনিবার ছিল নারায়নগঞ্জ সাংবাদিক ইউনিয়নের নতুন কমিটির অভিষেক অনুষ্ঠান। মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী ছিলেন প্রধান অতিথি। প্রথমবারের মতো একই মঞ্চে বসবেন সদরের এমপি সেলিম ওসমান ও সিটি মেয়র সেলিনা হায়াত আইভি। আর এই অসাধ্য সাধনে মূল ভূমিকায় নারায়নগঞ্জের কৃতি সন্তান দৈনিক সংবাদের ব্যবস্থাপনা সম্পাদক কাশেম হুমায়ন।
অনুষ্ঠানে নারায়নগঞ্জের স্বনামধন্য ব্যবসায়ী ও প্রশাসনের শীর্ষ কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। আমিসহ সবাই উৎসুক ছিলাম এমপি ও মেয়রের মুখোমুখি হওয়া নিয়ে।
শুরুতেই এমপি আসলেন। মেয়র আসবেন, আসছেন আমরা মঞ্চে অপেক্ষায়। এক সময় শুনলাম মেয়র আসবেন না। সব উৎসাহে ভাটা।
নারায়নগঞ্জ সাংবাদিক ইউনিয়নের অফিস খুবই ঝরাগ্রস্ত একটি ভবনে এটি উল্লেখ করে আমার বক্তব্যে বললাম, এমপি যদি উদ্যোগ নেন আর উপস্থিত ব্যবসায়ীরা এগিয়ে আসলে একটি ভালো ভবনে ইউনিয়নের স্থায়ী অফিস হতে পারে। সেই সাথে সাংবাদিক নির্যাতন ও হয়রানি যাতে নারায়নগঞ্জে না হয় তার জন্য তাদের কাছে আহবান জানালাম।
সেলিম ওসমান খুবই রাগী এবং নেতিবাচক একটি চরিত্র আমার কাছে। আমি যখন এই দুটি বিষয় উপস্থাপন করলাম, তখন তিনি বিশেষভাবে আমার দিকে তাকালেন। বিষয়টি লক্ষ্য করলাম।
তিনি যখন বক্তব্য দিতে দাড়ালেন ভাবছি, মেয়র আর আমাকে ধুয়ে দেবেন। কিন্তু পুরা উল্টা পথে হাটলেন। সিটি মেয়র আসবেন, প্রথমবারের মতো এক মঞ্চ শেয়ার করবেন, অনেক বিষয়ে তার অবস্থান পরিস্কার করবেন এমন আশা নিয়ে এসেছিলেন।
মেয়র না আসায় কোন ক্ষোভ বা তাচ্ছিল্য প্রকাশ করলেন না, শহরে ময়লা যত্রতত্র ফেলার জন্য মেয়রকে নয়, নাগরিকদের দায়িত্ব রয়েছে তা মনে করিয়ে দিলেন।
রাজনীতিতে শক্র থাকতে পারে না, প্রতিদ্বন্দ্বী থাকবে বলে জানালেন। সিটি মেয়র আইভির সাথে ওসমান ভাইদের বিরোধের কথা জানেন না এমন কেউ দেশে নেই। কিন্তু পুরা বক্তব্যে কোথাও তার কোন দেখা গেল না। রাজনীতি এমনই হওয়া উচিত। নিশ্চয়ই অদূর ভবিষ্যতে আইভি ও ওসমান ভাইরা একই মঞ্চ শেয়ার করবেন। নারায়নগঞ্জের উন্নয়নের স্বার্থে এক সাথে কাজ করবেন।
সেলিম ওসমান সাংবাদিক ইউনিয়ন ভবন করে দেবার যে দাবি করেছিলাম তা ভোলেন নাই। বললেন, নারায়নগঞ্জের বাইরে থেকে এসে একজন ইউনিয়ন অফিসের জন্য জায়গা ও ভবন চেয়েছেন। অনুষ্ঠানে উপস্থিত অতিরিক্ত জেলা প্রশাসককে দ্রুত ব্যবস্থা নেয়ার নির্দে শ দিলেন। জায়গা পেলেই ব্যবসায়ীদের সাথে নিয়ে নিজে ভবন করে দেবেন বলে প্রতিশ্রুতি দিলেন।
অনুষ্ঠান শেষে আমাকে বললেন, ৬ মাসের মধ্যে সাংবাদিক ইউনিয়নের এ সমস্যা সমাধান করবেন।
একই আদর্শের মধ্যে বিরোধ থাকবে। কিন্তু শত্রুতা থাকবে না। নারায়নগঞ্জের উন্নয়নে মেয়র ও এমপি’র একসাথে পথচলা অতীব জরুরি।
নারায়নগঞ্জ সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি সালাম খোকন, সাধারণ সম্পাদক আমির হোসেন স্মিথসহ সবাইকে শুভেচ্ছা এই আয়োজনের জন্য।

দীপ আজাদ

নাগরিক টিভি

হেড অব নিউজ

print