পশুপাখির নকল ওষুধ কারখানায় র‌্যাবের অভিযানে আটক ৩

81
পশুপাখির নকল ওষুধ কারখানায় র‌্যাবের অভিযানে আটক ৩

প্রেস বিজ্ঞপ্তি

র‌্যাব-১১ এর অভিযানে নরসিংদীতে অননুমোদিত কারখানায় গবাদি পশুপাখির নকল এন্টি-বায়োটিক ঔষুধ তৈরির দায়ে ০৩ জন গ্রেফতার।

গত ২১ নভেম্বর ২০২০ খ্রিষ্টাব্দে ১৮.৩০ ঘটিকায় নরসিংদী জেলার নরসিংদী সদর থানাধীন গাবতলী উত্তরপাড়া সংলগ্ন জনৈক মোঃ আকরাম হোসেন এর বাড়ীর ভিতর নেটার এগ্রো এন্ড এ্যাকোয়া ফ্যাক্টরীতে গোপন সূত্রে প্রাপ্ত তথ্যের ভিত্তিতে পরিচালিত র‌্যাব-১১, সিপিএসসি এর অভিযানে অননুমোদিত কারখানায় গবাদি পশুপাখির নকল এন্টি- বায়োটিক ঔষধ তৈরি ও বাজারজাত করার অপরাধে ০৩ জনকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃতরা হলোঃ ১। মোঃ শামীম হোসেন (২৬), ২। মোঃ আলমগীর মিয়া (২৬) ও ৩। মোঃ মহসিন মিয়া (২৪)। এসময় কারখানায় তৈরি অবস্থায় হাঁস-মুরগীর নকল এন্টি- বায়োটিক ঔষধ ০৯ বোতল কোটিল-২৫ (৫০০ মিঃ লিঃ), ৬৫ বোতল কোটিল-২৫ (১০০ মিঃ লিঃ), ৪০ বোতল কোসিপ-২০০ (৫০০ মিঃ লিঃ), ১২০ বোতল কোসিপ-২০০ (১০০ মিঃ লিঃ), ৫৫ বোতল কু-কক্স (১০০ মিঃ লিঃ), ২৪০ প্যাকেট ক্যালসিমক্স ও ০১ বিল ভাউচার এর ফাইল জব্দ করা হয়।

গ্রেফতারকৃত’দেরকে জিজ্ঞাসাবাদ ও প্রাথমিক অনুসন্ধানে জানা যায় যে, তারা পরষ্পর যোগসাজশে দীর্ঘদিন যাবৎ নরসিংদী জেলার নরসিংদী সদর থানাধীন গাবতলী উত্তরপাড়া এলাকায় জনৈক মোঃ আকরাম হোসেন এর বাসা ভাড়া নিয়ে নেটার এগ্রো এন্ড এ্যাকোয়া’ নামক ফ্যাক্টরী চালিয়ে আসছিল। উক্ত ফ্যাক্টরীতে তারা কোরিয়ার তৈরি গবাদি পশুপাখির এন্টি বায়োটিক ঔষধ হিসেবে ব্যবহৃত বিভিন্ন ঔষধ নকল করে ক্ষতিকর রাসায়নিক পদার্থ দিয়ে উৎপাদন করে আসছে। তারা সরকারী অনুমোদন অমান্য করে দীর্ঘদিন ধরে অননুমোদিত কারখানায় ক্ষতিকর গবাদি পশুপাখির নকল এন্টি বায়োটিক ঔষধ উৎপাদন করে নরসিংদী ও নারায়ণগঞ্জসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে অবৈধভাবে বাজারজাত করে আসছে। গ্রেফতারকৃত আসামীরা বিভিন্ন প্রকার ক্ষতিকর রাসায়নিক পদার্থ দ্বারা উক্ত ফ্যাক্টরীতে ক্ষতিকর গবাদি পশুপাখির নকল এন্টি বায়োটিক ঔষধ সরকারি অনুমোদন ব্যতিত উৎপাদন এবং বাজারজাত করছে বলে জানায় যা জনস্বাস্থ্যের জন্য মারাত্নক হুমকি স্বরুপ এবং ক্ষতিকর। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আরও জানা যায়, আর্থিকভাবে লাভবান হওয়ার উদ্দেশ্যে অসাধু উপায় অবলম্বন করে কোরিয়ান ব্র্যান্ড নকল করে গবাদি পশুপাখির নকল এন্টি বায়োটিক ঔষধ উৎপাদন করে নরসিংদী, নারায়ণগঞ্জ ও ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন জেলায় সরবরাহ করে আসছিল।

গ্রেফতারকৃত আসামীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন।

print