লালমাইয়ে নতুন করে চাঁদাবাজি শুরু হলো হরিশ্চরে

1350
চাঁদাবাজি

লালমাই (কুমিল্লা) প্রতিনিধি
কুমিল্লা জেলার লালমাই উপজেলার হরিশ্চর মোড়ে সড়কে পরিবহন থেকে চাঁদাবাজি শুরু করেছে চিহ্নিত চাঁদাবাজরা। এ বিষয়ে পূর্বের উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে চালক শ্রমিকগন লিখিত অভিযোগ দিলেও কোন ব্যবস্থা নেয় নি তিনি। এর মধ্যেই তার বদলি হয়ে যায় অন্যত্র। তবে নতুন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বলেছেন ফের নতুন করে অভিযোগ দিতে। ওই উপজেলা সরকারি উচ্চপদস্থ কর্মচারীগনের চাকরিবিধি মানার বাধ্যবাধকতা নেই বললেই চলে। যেখানে তারা চাঁদাবাজদের বিরুদ্ধে স্বপ্রণোদিত হয়ে ব্যবস্থা নেয়ার কথা থাকলেও তারা হরদম নাকে তেল দিয়ে ঘুমায়। করোনা ভাইরাসের আতঙ্ক ও সড়কের বেহাল দশা এইসবের মধ্যেও থেমে নেই গণপরিবহনে চাঁদাবাজি। সড়কে গাড়ি থামিয়ে এবং স্ট্যান্ডে দাঁড়িয়ে কিছু অসাধু ব্যক্তি রাজনৈতিক প্রভাব শ্রমিক সংগঠনের নাম ভাঙ্গিয়ে বিভিন্ন পরিবহন থেকে অবৈধভাবে এই চাঁদা উত্তোলন করছেন।

বিশেষ করে কুমিল্লা-নোয়াখালি আঞ্চলিক মহাসড়কের লালমাই উপজেলার বাগমারা বাজার, নতুন সংযোজন হরিশ্চর চৌরাস্তায়, পদুয়ারবাজার বিশ্বরোড ও লাকসামের সাতবাড়িয়া এলাকায় এই চাঁদাবাজদের দৌরাত্ম্য বেশি। সিএনজিচালিত অটোরিকশা, মিশুক, রিক্সা থেকে অবৈধ চাঁদা আদায়ের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছেন ভুক্তভোগী চালকরা। চাঁদাবাজি বন্ধের দাবিতে লালমাই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার বরাবর একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন চালকরা। তাদের অভিযোগ, বাগমারা বাজার, হরিশ্চর কিছু ব্যক্তি রাজনৈতিক প্রভাব খাটিয়ে কল্যাণের কথা বলে টোকেনের মাধ্যমে চালকদের জিম্মি করে এই চাঁদা আদায় করেন। টাকা না দিলে মারধর করে গাড়ির চাবি নিয়ে বিভিন্নভাবে হয়রানি করছেন বলে অভিযোগ পাওয়া যায় ।
সিএনজি চালক মুকসুদ সহ একাধিক চালক জানান, তাদের একটি সংগঠন রয়েছে। ২০০৪ সাল থেকে সিএনজিচালিত অটোরিকশা শ্রমিক ইউনিয়ন (১৫৬৯) নামে ওই সংগঠনের মাধ্যমে কুমিল্লা লাকসাম সড়কে গাড়ি চালিয়ে আসছেন। তখন পথে পথে কোনও চাঁদা দিতে হয়নি। কিন্তু গত মে মাস থেকে স্থানীয় কিছু রাজনৈতিক নেতা বাগমারা বাজারে দাঁড়িয়ে সিএনজি চালকদের কাছ থেকে অবৈধভাবে চাঁদা আদায় করে আসছেন। যা রীতিমতো চাঁদাবাজি। এই চাঁদা আদায় বন্ধের দাবিতে লালমাই উপজেলার সাবেক নির্বাহী কর্মকর্তা এ কে এম ইয়াসির আরাফাতের কাছে একটি লিখিত অভিযোগ করা হয়েছিল। সম্প্রতি হরিশ্চর চৌরাস্তায় ফল ব্যবসায়ী সড়কে চাঁদাবাজ সংগঠনের সভাপতি আবদুল বাসেত সংগঠনের নাম ভাঙ্গিয়ে চাঁদাবাজি চালিয়ে যাচ্ছে।  সড়কে বাসেতের পক্ষে চাঁদা তোলে শাহজাহানসহ আরও ৩ জন।
চালকদের অভিযোগের বিষয়ে কুমিল্লা টমছম ব্রিজ সিএনজিচালিত অটোরিকশা শ্রমিক ইউনিয়নের (১৫৬৭) সাধারণ সম্পাদক মো. আলম জানান, কুমিল্লা লাকসাম রোডে পদুয়ারবাজার বিশ্বরোড এবং বাগমারা বাজার, হরিশ্চর চৌরাস্তা এলাকায় কিছু লোক রাজনৈতিক প্রভাব খাটিয়ে সিএনজি চালকদের থেকে অবৈধ চাঁদা আদায় করছেন এমন অভিযোগ পেয়েছি। সড়কে দাঁড়িয়ে চাঁদা আদায় আমাদের সংগঠনে কোনও নিয়ম নেই। পদুয়ার বাজার, বাগমারা বাজার, হরিশ্চর চৌরাস্তায় যারাই চাঁদা আদায় করছেন তা নিয়মনীতির বাইরে রাজনৈতিক প্রভাব খাটিয়ে করছেন। আমরা এই চাঁদাবাজদের বিরুদ্ধে প্রশাসনের ব্যবস্থা চাই।
এব্যপারে লাকসাম ক্রসিং হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির আইসি মোঃ জিয়াউর রহমান বলেন সড়কে কোন অনিয়ম চলতে দেয়া যাবেনা। প্রয়োজনে চাঁদাবাজদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হবে।
লালমাই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ নজরুল ইসলাম জানান, সিএনজিচালিত অটোরিকশার পরিবহন সংগঠন থেকে লিখিত অভিযোগ পাইনি । অভিযোগ পেলে তদন্ত পূর্বক ব্যবস্হা গ্রহণ করা হবে।

print