শামীমের মীরুর বিরুদ্ধে ফের মামলা

5489

বাংলা সংবাদ

শামীম ওসমানের আস্থাভাজন মানুষ কেটে মাগুর মাছকে খাওয়ানো সেই মীরুর বিরুদ্ধে ফের ফতুল্লা মডেল থানায় মামলা হয়েছে। মামুন অর রশীদ সন্ত্রাসী মীরুর বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছেন। এর আগে নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য একেএম শামীম ওসমানের তদবীরে সন্ত্রাসী মীরু জামিনে বেরিয়ে আসে। শামীম ওসমানের হিসেবে মীরু একজন নিতান্ত ভাল মানুষ। অথচ তার বিরুদ্ধে রয়েছে ১৬ টি মামলা। এ নিয়ে জেলা জুড়ে রয়েছে ভিন্ন প্রতিক্রিয়া।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, মীরু ও তার বাহিনী অস্ত্রসস্ত্রে সজ্জিত হয়ে তার মার্কেটে প্রবেশ করে ২০ লাখ টাকা চাঁদা দাবী করে। এ ঘটনায় মোট ৫ জনের নাম উল্লেখ করে ও অজ্ঞাতনামা আরও ৬/৭ জনের নামে অভিযোগ করা হয়েছে। অভিযোগে যাদের নাম রয়েছে তারা হলেন, মীরু ওরফে লেংরা মীরু, আরিফ, শাকিল, মুরাদ, মৃত আনোয়ার বেপারীর ছেলে জাকির হোসেন।

শুক্রবার সন্ধ্যায় ফতুল্লার পাগলা মুসলিম মার্কেট এলাকায় নির্মানাধীন ভবনে হামলা চালায়। হামলায় মার্কেটের ম্যানেজার জলিলের ডান হাতে হাড় ভেঙ্গে গুরুতর জখম হয়। এছাড়াও তাকে রড ও দেশীয় অস্ত্র দিয়ে এলোপাথাড়ি আঘাত করতে থাকে। সবশেষে তাকে অস্ত্রের মুখে রিক্সায় তুলে চাঁদার টাকা আনতে বলে। জলিলেকে খানপুর হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

অনুসন্ধানে জানা গেছে, মীরুর বিরুদ্ধে মোট ১৮টি মামলা রয়েছে। এরমধ্যে ৪ টি হত্যা মামলা, ১ টি অস্ত্র মামলা, ২ টি মাদক মামলা, ২ টি চাঁদাবাজি মামলাসহ আরও মামলা রয়েছে। মামলাগুলোর মধ্যে হত্যা মামলাগুলো হলো ৩৫(১০)১৫, ৪৩(২)১৬, ৬৬(১০)১৬, ১৩(৭০)১১। অস্ত্র মামলাগুলো হলো ১৭(১১)১২, ৭৭(৩)১২, ২৯৬/১২। মাদক মামলাগুলো হলো ৪৬(৯)১২ ও ১৬(১১)১২। চাঁদাবাজির মামলাগুলো হলো ৭১(৬)১৩, ৭২(৪)১৪, ৪৩(৩)১৫, ১৯(৫)১৪, ২৭(৭)১৪, ১৮(১০)১৬, ৪৭(৩)১৫, ৭২(৪)১৪ ও ৬৪(১)১৯।

এ বিষয়ে জানতে মীরুর সাথে যোগাযোগ করেও তাকে পাওয়া যায় নি। ফতুল্লা মডেল থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মঞ্জুর কাদের বলেন, মামলা হয়েছে। আসামী ধরা পড়বে এটাই নিয়ম।

print