সাংবাদিক সাবধান মেয়রের কথা বললে মাথা থাকবে না

2802

বকশীগঞ্জে মেয়রের বডির্গাড হুমকি

রোকনুজ্জামান সবুজ, জামালপুর

জামালপুরের বকশীগঞ্জ পৌরমেয়র নজরুল ইসলাম সওদাগর কর্তৃক সাংবাদিকের উপর হামলা, ক্যামেরা ছিনতাই ও মারধরের খবর পত্রিকায় প্রকাশিত হওয়ার পর সাংবাদিককে হত্যার হুমকী দিয়েছে। মেয়রের বড়িগার্ড মজনু কান তার ফেসবুক ওয়ালে এই হত্যার হুমকী প্রদর্শন করে। মজনু খান ফেসবুকে কমেন্টে লিখেন, ‘সাংবাদিক সাবধান মেয়রের কথা বললে মাথা থাকবে না।
জানা যায়, ১৮ এপ্রিল বকশীগঞ্জ উপজেলার সুর্য্যনগর বাজারে ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান চলাকালে ধানুয়াকামালপুর গ্রামের সিরাজুল ইসলাম কৃষক গুরুত্বর অসুস্থ্য হয়ে পড়ে। তাকে হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত ডাক্তার সিরাজুল ইসলামকে মৃত ঘোষনা করেন।
ঘটনার খবর পেয়ে স্থানীয় জনসাধারণ বকশীগঞ্জ হাসপাতালে সমবেত হয়ে বিক্ষোভ করতে খাকে। ওই সময় বিক্ষোভরত জনগণের ছবি তুলতে গেলে বকশীগঞ্জ পৌরসভার মেয়র নজরুল ইসলাম সওদাগর দৈনিক ইত্তেফাক পত্রিকার সাংবাদিক বকশীগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি এম শাহীন আল আমীনের ক্যামেরা কেড়ে নেন এবং সাংবাদিককে মারপিট করেন।
এ বিষয়ে বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশিত হয়। ১৮ এপ্রিল জনদ্বীপ ডট কম এ প্রকাশিত সংবাদটি শেয়ার করেন দৈনিক দেশের কন্ঠ পত্রিকার বকশীগঞ্জ উপজেলা প্রতিনিধি সাংবাদিক সালাম মাহমুদ।
রবিবার ১৯ এপ্রিল সালাম মাহমুদের শেয়ার করা সেই পোস্টে বকশীগঞ্জ পৌরসভার মেয়রের ‘বডিগার্ড’ হিসেবে পরিচিত মজনু খান ‘সাংবাদিক সাবধান মেয়রের কথা বললে মাথা থাকবে না’ লিখে কমেন্ট করেন।
পরবর্তীতে অনেকে তার এই মন্তব্যের স্ক্রিনশট ফেইসবুকে ছড়িয়ে দিলে এ নিয়ে আলোচনার ঝড় উঠে। ফেইসবুক পোস্টে সরাসরি সাংবাদিকদের নিয়ে এ ধরনের মন্তব্যকে সাংবাদিকের প্রতি হুমকি হিসেবে অভিহিত করছেন জামালপুরের স্থানীয় সাংবাদিকরা।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে মেয়রের বডিগার্ড হিসেবে পরিচিত মজনু খান জানান, ‘আমি মেয়রের সঙ্গে থাকি, তবে আমি তার বডিগার্ড নই। স্থানীয় সাংবাদিক সালাম মাহমুদ আমার বোন জামাই। আমি মজা করে তার পোস্টে ওই মন্তব্য করেছিলাম। আমি আসলে সেভাবে ভাবিনি। পরে সবাই এটা নিয়ে কথা বললে আমি আমার মন্তব্যটি সরিয়ে নিয়েছি।
সাংবাদিক সালাম মাহমুদ জানান, ‘মজনু খান আমার এলাকায় বিয়ে করেছেন। তিনি আমার তেমন কোনো আত্মীয় না। তিনি সরাসরি সাংবাদিকদের হুমকি দিয়েছেন।’
বকশীগঞ্জে পৌরসভার মেয়র নজরুল ইসলাম সওদাগর বলেন, ‘আমার কোনো বডিগার্ড নেই। জনগণই আমার বডিগার্ড। ফেইসবুকে কে কী মন্তব্য করেছে তার সঙ্গে আমার কোনো সম্পর্ক নাই।

print