সিদ্ধিরগঞ্জে মাছের সাথে শত্রুতা

88
সিদ্ধিরগঞ্জে মাছের সাথে শত্রুতা

সিদ্ধিরগঞ্জ প্রতিনিধি
সিদ্ধিরগঞ্জের উত্তর আজিবপুর পূর্ব শত্রুাতার জের ধরে মৎস খামারে বিষাক্ত দূরগন্ধযুক্ত ময়লা আবর্জনা ফেলে ১৫/২০ লক্ষাধিক টাকার বিভিন্ন প্রজাতির মাছ নিধনের চেস্টার অভিযোগ করেন শাহাজালাল মৎস খামারের মালিক জননেত্রী শেখ হাসিনা পরিষদের সিদ্ধিরগঞ্জ থানা কমিটির সাধারন সম্পাদক ও নাসিক ৪নং ওয়ার্ড শ্রমিকলীগের সভাপতি মোঃ কবির হোসেন ও মোঃ লাট মিয়া।
ঘটনাটি ঘটছে গত( ৯ সেপ্টেম্বর) বুধবার সকালে উত্তর আজিবপুর মোঃ কবির হোসেন ও মোঃ লাট মিয়ার শাহাজালাল মৎস খামারে।
শাহাজালাল মৎস খামারে মালিক জানান যে দীর্ঘ ৩০ থেকে ৩৫ বছর যাবৎ সুনামের সাথে এখানে মাছের দানী পোনা ছোট থেকে বড় করে ব্যবসা করে আসছি। এর আগে আমার মৎস খামার থেকে বড় বড় মাছ চুরি হয়ে যায়।বুধবার সকালে লোকমুখে খবর পেয়ে কবির হোসেন ও লাট মিয়া এলাকার লোকজন নিয়ে গিয়ে দেখতে পাই যে তাদের খামারে ভিতরে বিষাক্তযুক্ত দূরগন্ধ ময়লা আবর্জনা ফেলেছে একই এলাকার মোঃ আরুন মুন্সির ছেলে মোঃ সফিকুল ইসলাম (সফি) তার সাথে মৎস খামার ব্যবসায়ী মো কবির হোসেনের পূর্বে পারিবারিক শত্রুতা ও রাজনৈতিক প্রতিহিংসা চলে আসছে। মৎস খামার ব্যবসায়ী বলেন যে আমার খামার সফিক যে দূরগন্ধযুক্ত ময়লা ফেলেছে তার গন্ধে আমার খামারে বিভিন্ন প্রজাতির দানী পোনা ও ছোট বড় মাছ আছে যে কোন সময় ময়লার গন্ধে মারা যেতে পারে।মৎস খামারি আরো বলেন যে সফিক একজন খারাপ দুস্ট প্রকৃতির লোক সে বিএনপির এক জন নেতা,সে সুদের উপরে টাকা লাগিয়ে টাকার প্রভাবে এলাকার ভিতরে বিভিন্ন আপরাধ মূলক কর্মকান্ড করে থাকে।
এ ব্যাপারে সফিকের সাথে মুঠো ফোনে কথা বললে জানান যে আগে খামারে বড় ছিল এখন ছোট হয়ে গেছে এখানে মাছ চাষ করা হয় কী না আমার যানা নাই।
মৎস খামার ব্যবসায়ী কবির হোসেন ও মোঃ লাট মিয়া বলেন আমাদের এই খামারে পানিতে দূরগন্ধযুক্ত ময়লা আবর্জনা ফেলে দিয়েছে এত বড় ক্ষতি করলো সফিক।আমরা সফিকের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করছি।

print