হয়রানী করে অধিক মূল্যে জমি বিক্রি’র পায়তারায় বেসামাল পলি গং !

69
হয়রানী করে অধিক মূল্যে জমি বিক্রি’র পায়তারায় বেসামাল পলি গং !

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি

ইসদাইর রসূলবাগ এলাকায় স্বামী’র পৈত্রিক সম্পত্তি বিক্রি করতে না পেরে প্রতিষ্ঠিত ব্যবসায়ীকে নিয়ে কুৎসা রটিয়ে কারাভোগ করেও ক্ষান্ত হননি একই এলাকার গৃহবধূ ফারজানা আক্তার পলি। কখনো মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের অযুহাত, কখনোবা ক্ষমতাশীলদের পরিচয়ে বেপরোয়া এই নারী। তার নেতৃত্বে স্বামী ও পরিবার এখন অনিয়ন্ত্রিত। শুধু তাই নয়, নিয়ম বর্হিভূতভাবে অন্যের সম্পাত্তির ৮ফুট ভিতরে অনুপ্রবেশ করে দেয়াল নির্মাণ করারও অভিযোগ পাওয় গেছে।
বর্তমানে আজাদ রিফাত ডাইং এর পরিচালক সহ তার পরিবারকে নিয়ে নানা কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য করায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে দায়ের করা মামলায় ফারজানা আক্তার পলি ও মো. মতিন মোল্লার বিরুদ্ধে ৫ দিনের রিমান্ড আবেদন করেছে পুলিশ। রবিবার (২৫ অক্টোবর) সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট নুরুন্নাহার ইয়াসমিনের আদালতে তাদের একদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করা হয়েছে।
এ বিষয়ে কথা হলে ভুক্তভোগী মো. তাজুল ইসলাম রাজিব জানান, ব্যবসা একটা সম্মানজনক পেশা। যার মাধ্যমে আমরা নিজেরাও সম্মান নিয়ে এ সমাজে বসবাস করে আসছি। তবে র্দীঘদিন যাবত ফারজানা আক্তার পলি ও মো. মতিন মোল্লা উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে আমার পরিচালিত প্রতিষ্ঠান আজাদ রিফাত ডাইং সহ আমার বাবা ও আমাকে নিয়ে বিভিন্ন অপপ্রচার চালিয়ে যাচ্ছে। আর এরই ধারাবাহিকতায় কোনরূপ তথ্যপ্রমান ছাড়া আমাকে জড়িয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে কুরুচির্পূণ মন্তব্য পোষ্ট করায় আমি আইনের আশ্রয় নিতে বাধ্য হই। এর প্রেক্ষিতে দায়ের করা মামলায় আইন অনুযায়ী পুলিশ তাদের হাজতে পাঠায়। কিন্তু বর্তমানে যে অপপ্রচার চালানো হচ্ছে তা সম্পূর্ণ মিথ্যা ও ভিত্তিহীন। পলি গং তার স্বামীর পৈত্রিক সম্পত্তি বেশী মূল্যে ক্রয় করে নিতে আমাদের নিয়ে উল্টো অপপ্রচার চালানো হচ্ছে।
সরেজমিনে ঘটনাস্থলে আসার অনুরোধ জানিয়ে তিনি বলেন, আমরা আমাদের জমির মধ্যেই ভবন করেছি। এরমধ্যে একটি মৎস খামারও রয়েছে। বর্তমানে আমাদের কারো জায়গা ক্রয় করার বা দখল করার কোন ইচ্ছাই নেই। নিজেদের যতটুকু সম্পত্তি রয়েছে এতেই আমরা সন্তুষ্ট। বরং মতিনদের জমি বেশী মূল্যে ক্রয় করতে আমাদের কাছে তারা ইচ্ছা পোষণ করেছে। এখন তা নিতে অসম্মতি জানালে তারা বিভিন্ন কু-কৌশল অবলম্বন করছেন। এছাড়া ওই ফারজানা আক্তার পলি নিজেও ওই সম্পত্তির কেউ নন। আমি যেহেতু সঠিক আছি তাই এ পর্যন্ত কোন প্রভাব বিস্তার কিংবা কাউকে জড়াইনি। আইনের উপর আস্থা রেখেছি। তাছাড়া তারা নিয়ম বর্হিভূতভাবে আমাদের সম্পাত্তির মধ্যেই ৮ফুট ভিতরে অনুপ্রবেশ করে দেয়াল নির্মাণ করেছে।

print